সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১
মানচিত্র
জনদুর্ভোগ ব্রেকিং নিউজ

অফিসগামী মানুষের চরম ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ফের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পণ্যবাহী যানবাহন ও রিকশা ব্যতীত সব গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সারাদেশে চলছে সীমিত পরিসে লকডাউন।
গণপরিবহন চলাচল বন্ধ। সীমিত লকডাউনের প্রথম দিনে নানা দুর্ভোগ আর অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হয়েছে অফিসগামী মানুষের। তারা রিকশা, রাইড শেয়ারিং মোটরসাইকেলে গন্তব্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করেন।
সোমবার সকাল ৮ টা থেকে রাজধানীর মিরপুর ১৪, ১২, ১১, ১০ ও ২ নম্বর বাসস্ট্যান্ড এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।
সুমাইয়া আক্তার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা। মিরপুর ১০ নম্বর থেকে যাবেন আগারগাঁও। দীর্ঘ এক ঘণ্টা অপেক্ষার পরে কোনো পরিবহন না পেয়ে রিকশায় যাত্রা শুরু করেন আগারগাঁও উদ্দেশ্যে। তিনি বলেন, সীমিত পরিসে ‘লকডাউন’ ঘোষণা করা হয়েছে। অফিস খোলা আছে। অফিস তো যেতেই হবে। চাকরি বাঁচাতে হবে। চাকরি চলে গেলে পরিবার নিয়ে বিপদে পড়ে যাব। যত কষ্ট পোহাতে হয় আমাদের মত সাধারণ মানুষের। ৮০ টাকার ভাড়া রিকশা চালক নিচ্ছে ১৩০ টাকা। যে যেভাবে পারছে ভাড়া চাইছে, বাড়তি ভাড়া নিচ্ছে। কে দেখবে এইসব অসংগতি আর সমস্যা?
অন্য একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আমিনুল হক। মিরপুর ২ নম্বর থেকে পায়ে হেঁটে এসেছেন মিরপুর ১০ নম্বর বাসস্ট্যান্ডে। আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করে গুলশানে যাওয়ার কোনো যানবাহন পাচ্ছিলেন না। তিনি বলেন, সরকার অফিস বন্ধ না করে ‘লকডাউন’ ঘোষণা করেছে। এভাবে কি সাধারণ মানুষকে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করা যায়? মানুষ যদি নিজে থেকে সচেতন না হয়।
রাইড শেয়ারিং মোটরসাইকেল চালক মো. সালমান বলেন, অফিসগামী মানুষ যে যেভাবে পারছেন অফিস যাচ্ছেন। কেউ রিকশা, সিএনজি ও রাইড শেয়ারিং মোটরসাইকেলে যাচ্ছেন।
এক প্রশ্নের জবাবে সালমান বলেন, এবারের সীমিত পরিসরে ‘লকডাউনে’ রাইড শেয়ারিং বন্ধের বিষয়ে কিছু বলে নাই সরকার। বন্ধ হওয়ার ঘোষণার আগ পর্যন্ত বাইক চালাবো। রাইড শেয়ারিং করে যে কটা টাকা উপার্জন হয় তা নিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে খেয়ে পড়ে বেঁচে আছি। মোটরসাইকেল নিয়ে রাস্তায় না বের হলে না খেয়ে থাকতে হবে। অন্যান্য দিনের তুলনায় রাইড শেয়ারিং এর ভাড়া একটু বেশি নেওয়া হচ্ছে।
ট্রাফিক পল্লবী জোনের ট্রাফিক ইনস্পেক্টর (টিআই) মো. কাওছার উদ্দিন বলেন, আজ থেকে দেশে চলছে সীমিত পরিসরে ‘লকডাউন’। জরুরি কাজে জড়িত ডাক্তার-গণমাধ্যমকর্মীদের পরিবহনে ছাড় দেওয়া হচ্ছে। সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী সড়ক পরিবহন নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।
এর আগে, রোববার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এতে বলা হয়, সারাদেশে পণ্যবাহী যানবাহন ও রিকশা ব্যতীত সব গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নিয়মিত টহলের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

Related posts

মিয়ানমারের বিক্ষোভকারীদের ‘আবর্জনা ধর্মঘট’

Maydul Islam

১২ ও ১৩ এপ্রিল দেশ কীভাবে চলবে, সিদ্ধান্ত রোববার

Maydul Islam

ভারতে শক্তিশালী ভূমিকম্প

Labonno

Leave a Comment

Translate »