অক্টোবর ১৯, ২০২১
মানচিত্র
খেলাধুলা

বার্সেলোনা ছাড়তে চেয়েছিলেন লিওনেল মেসি

গত আগস্টে বার্সেলোনা ছাড়তে চেয়েছিলেন লিওনেল মেসি। কিন্তু সে সময়কার ক্লাব সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ সে কথা কানে তোলেননি। আইনি ফাঁকফোকর খুঁজে নিয়ে মেসিকে আটকে রেখেছেন ক্লাবে।

বার্সায় প্রশাসনিকভাবে ব্যর্থ বার্তোমেউকে এরপর ক্লাব–সমর্থকদের ক্ষোভের মুখে ঠিকই পদত্যাগ করতে হয়েছে। তাঁর জায়গায় আপৎকালীন দায়িত্ব সারছেন তুসকেতস। এই কর্মকর্তা বলেছিলেন, মেসিকে বিক্রি না করে ভুল করেছে বার্সেলোনা। ক্লাব দেউলিয়া হওয়ার পথে, এমন অবস্থায় মেসিকে বিক্রি করলে বেশ কিছু আয় হতো। আর মেসির বেতন বাবদ যে অর্থ ব্যয় হয়, সে থেকেও মুক্তি মিলত।

এমন কথায় খেপে উঠেছিলেন অনেকেই। কোচ রোনাল্ড কোমান সরাসরিই বলেছিলেন, ক্লাবের ভেতরে এমন কথা বলা অনুচিত। এবার ক্লাবের ভেতরের না হলেও ঘনিষ্ঠ একজনই বললেন, মেসিকে বিক্রি না করা ভুল ছিল। তিনি ক্লাবের ব্রাজিল কিংবদন্তি রিভালদো।

এই জানুয়ারিতেই চাইলে অন্য কোনো ক্লাবের সঙ্গে কথা বলে রাখতে পারবেন মেসি। তবে বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড নিজের দলবদলের সিদ্ধান্ত আরেকটু পিছিয়ে নিয়েছেন। মৌসুম শেষেই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। তখন যেতে চাইলে সেটা ম্যানচেস্টার সিটি হোক কিংবা পিএসজি যে ক্লাবেই যান, মুফতেই চলে যাবেন মেসি।

বার্সেলোনার হয়ে দুটি লিগ জেতা রিভালদোর চোখে এখানেই ভুল করেছে তাঁর সাবেক ক্লাব। বেটফেয়ারকে রিভালদো বলেছেন, ‘চুক্তিবদ্ধ অবস্থায় মেসিকে বিক্রি না করে আগের বোর্ড ভুল করেছে। রিয়াল মাদ্রিদ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ক্ষেত্রে যা করেছে, মেসির ক্ষেত্রে তাঁরা চাইলে তেমন কিছুই করতে পারত। ওরা রোনালদোকে বিক্রি করে ১০০ মিলিয়ন (১০ কোটি) ইউরো পেয়েছে।’

কেন ভুল করেছে বার্সেলোনা, সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন রিভালদো। তাঁর চোখে যে ক্লাব এমন আর্থিক সমস্যার মধ্য দিয়ে দিন পার করছে, তাদের আরেকটু বুদ্ধিমান হওয়া উচিত ছিল।

ক্লাবের বর্তমান অবস্থায় মেসিকে ধরে রাখার মতো প্রস্তাব এমনিতেও বার্সা দিতে পারবে না বলেই তাঁর ধারণা, ‘এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক, এত প্রতিভাধর একজন খেলোয়াড় বার্সেলোনা থেকে মুফতে চলে যাচ্ছে, যখন ক্লাব এত কঠিন আর্থিক সমস্যার সম্মুখীন। আমার চোখে মেসির বিদায় নেওয়া অবশ্যম্ভাবী।’

সম্প্রতি বার্সেলোনার আর্থিক দুর্দশার কথা প্রকাশ্যে চলে এসেছে। কাতালান ক্লাবটির এখন দেনা ১১৭ কোটি ৩০ লাখ ইউরো। অনেকেই বার্সার দেউলিয়া হওয়ার ভয়ও পাচ্ছেন। কিন্তু রিভালদো এ সমস্যা থেকে বেরোনোর উপায় পাচ্ছেন। আর সেটা হলো মেসির ক্ষেত্রে করা ভুলের পুনরাবৃত্তি না করা, ‘ফিলিপ কুতিনিও বিদায় নিতে পারে। বার্সেলোনা চাইলে ওসমান দেম্বেলে এবং আঁতোয়ান গ্রিজমানকেও ব্যবহার করতে পারে। এতে ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত হবে। স্পেনে ওর দিন ভালো না গেলেও ইংল্যান্ডে কুতিনিওর ভালো খ্যাতি আছে।’

একের পর এক তারকাকে যেভাবে বিদায় করে দেওয়ার পক্ষে রিভালদো, সেটি মানলে বার্সেলোনার হয়ে মাঠে আলো ছড়ানোর লোক খুঁজে পাওয়াই দুষ্কর হয়ে উঠতে পারে। কিন্তু ব্রাজিলের জার্সিতে ২০০২ বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি ফরোয়ার্ডের ধারণা, একাডেমি থেকে উঠে আসা একজন বার্সেলোনার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করে তুলতে সক্ষম।

২০ বছর বয়সী রিকি পুচকে প্রথমে খেলাতে না চাওয়া কোমানও ধীরে ধীরে ভুল বুঝতে পারছেন। তবে রিভালদো এই মিডফিল্ডারকে আরও বেশি খেলানোর পক্ষে, ‘আমি চাই রিকি পুচকে আরও গুরুত্ব দেওয়া হোক। ছেলেটা নিজের মূল্য দেখাচ্ছে এবং ওর দারুণ ব্যক্তিত্ব আছে। সে আমাকে তরুণ জাভি হার্নান্দেজের কথা মনে করিয়ে দেয়। আমি যখন ক্লাবে ছিলাম, তখন ওর (জাভি) উত্থান হয়েছিল।’

Related posts

মেসিদের ম্যাচসহ আজ যা দেখবেন টিভিতে

Maydul Islam

৮ ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারকে নিষিদ্ধ করেছে ফিফা

Maydul Islam

বসুন্ধরা কিংসের প্রথম হার

Shahidul Islam

Leave a Comment

Translate »